অর্থনৈতিক ব্যবস্থা বলতে কী বুঝায়

অর্থনৈতিক ব্যবস্থা বলতে বুঝাই একটি দেশের অর্থনৈতিক কর্মকান্ড যা তার অর্থনৈতিক উন্নয়নের উপর ভিত্তি করে চালু হয়। এটি একটি সাজানো পদক্ষেপ, যেখানে স্থানীয় সরকার এবং বাণিজ্যিক সংস্থায় সবচেয়ে বৃহত ভূমিকা রাখে। অর্থনৈতিক ব্যবস্থা ডেফিনশনটি এতো বিশাল যে এটি কোনো একটি কাজ নয় বরং একটি নেটওয়ার্ক, যা একটি দেশে সবসময় চলছে। এটি আমাদের পুরোনো রাষ্ট্র পদ্ধতিও পরিবর্তন করে নেয় এবং পুরো দেশকে একটি সমগ্র অর্থনৈতিক ব্যবস্থার মাধ্যমে পরিচালিত করে নেয়।

অর্থনৈতিক ব্যবস্থার সারসংক্ষেপ

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ব্যবস্থার গতি দৃষ্টিতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বর্তমানে দেশের উন্নয়নে বেশ কিছু সফলতা লাভ হয়েছে, অন্যদিকে এখনও কঠিন চুক্তি না লিখা সমস্যা রয়ে গেছে। জনশক্তি বেড়ে এসেছে কিন্তু বেকারত্বের হার ও কাজ মানেই নিরবচ্ছিন্ন গড় অনেক বেশী রয়ে গেছে। এছাড়াও শুধু একটি সমস্যা নয় অর্থনৈতিক উন্নয়নের পথে রাস্তাঘাটে নিয়েছে প্রাথমিকভাবে নিরসন করা হয়নি রাজনীতিতে খুবই কঠিন চুক্তি লিখা হয় কারণ সমস্যার কারনগুলো বেশ সমস্যাজনক এবং বৈপনাহ।

অর্থনৈতিক ব্যবস্থা হলো কী?

অর্থনৈতিক ব্যবস্থা হল একটি ব্যবস্থা যা রাষ্ট্র বা সমাজের অর্থনৈতিক অবস্থার উন্নয়ন এবং উন্নয়নের জন্য সম্পূর্ণ পরিচালিত এবং পরিচালিত হয়। এটি পরিচালকদের দায়িত্ব ব্যবস্থাপনার জন্য সঠিক নীতি নির্বাচন, আর্থিক ব্যবস্থার পরিবর্তন এবং সামাজিক বিদ্যমানতার সুষ্ঠু সম্পদ উপস্থাপন সহ অন্যান্য কার্যক্রম ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে সম্ভব হয় । এটি রাষ্ট্র যখন তা করে, তখন এটি উন্নয়নশীল দেশ বা সমাজ পক্ষে কার্যকরী হয়। অর্থনৈতিক ব্যবস্থা এনে আসে সুশস্তি এবং সমগ্র উন্নয়নের মাধ্যম হিসাবে Bangladesh কোনও ব্যক্তি বা পরিবারের সুখবর্তা, সরকার, প্রতিষ্ঠান, উদ্যোক্তা এবং প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে লক্ষ্য করে।

অর্থনৈতিক উন্নয়নের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উদ্দেশ্য মানুষের জনসাধারণের সুখবর্তা এবং দেশের সামাজিক উন্নয়ন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সুতরাং, রাষ্ট্র ও সমাজের নির্বাচিত প্রতিষ্ঠান এবং কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় উন্নয়নশীল অর্থনৈতিক ব্যবস্থাকে চালিয়ে যেতে হবে।

অর্থনৈতিক ব্যবস্থা সম্পর্কে কিছু মৌলিক কথা

অর্থনৈতিক ব্যবস্থা আমাদের প্রতিদিনের জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এর ব্যবস্থাপনাই দেশের উন্নয়নের প্রধান কারণ। অর্থনৈতিক ব্যবস্থা সম্পর্কে কিছু মৌলিক কথা হলো, প্রথমতঃ মানব সমাজের উন্নয়নের এই ব্যবস্থাকে আমাদের প্রতি বাংলাদেশীকে সর্বদা মনে রাখতে হবে। এটি শুধুমাত্র একটি নিশ্চিত একটি উদ্দেশ্য বা লক্ষ্যকে লক্ষ্য করে যেতে পারে না।

দ্বিতীয়তঃ, একটি ভালো অর্থনৈতিক ব্যবস্থার সুবিধাজনক এবং ন্যায্য আদর্শ হলো সমস্ত ক্ষেত্রে নিয়ম কানুনের মধ্যে পালন করা। তৃতীয়তঃ, পর্যায়ক্রমে বিনিয়োগিতা ও সঠিক নীতি-নীতিমালা বাজার, ব্যবসায় এবং আর্থিক কাজেই মূলত কাম্য। তাই সকলকে চাই একটি ভালো অর্থনৈতিক ব্যবস্থার জন্য আমাদের সমস্তকে সঠিক নীতি-নীতিমালা পালন করতে হবে। সত্যিই ভালো অর্থনৈতিক ব্যবস্থার জন্য আমাদের প্রতিটি অংশ একত্র হতে হবে।

প্রকৃতি, সমাজ এবং সরকারের ভূমিকা অর্থনৈতিক ব্যবস্থার উন্নয়নে

অর্থনৈতিক ব্যবস্থা দেশের উন্নয়নের মৌলিক উপাদান। এটি প্রকৃতি, সমাজ এবং সরকারের সঙ্গে সম্পর্কিত। প্রকৃতি একটি জীবনপ্রদান সম্পন্ন উৎপাদক এবং প্রাকৃতিক সম্পদ বৃদ্ধি ও প্রতিশ্রুতি দেয়। সমাজকে সুষ্ঠু এবং সমগ্র ব্যবস্থার মাধ্যমে মানব উন্নয়নে সহায়তা করা হয়।

সরকার আর্থিক উন্নয়নের জন্য প্রয়োজনীয় নীতি এবং পদক্ষেপ নেয়। সরকার একটি নির্দিষ্ট উদ্দেশ্যে আর্থিক সম্পদ উন্নয়ন এবং সকলের প্রয়োজনীয়তা মিটানোর জন্য তাকে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম নেওয়া উচিত। আর্থিক উন্নয়নের পরিকল্পনা হল উপযোগী সম্পদ সৃষ্টি করা। এটি বিভিন্ন কাজের জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ ও মানব সম্পদের বৃদ্ধি করে।

উদাহরণস্বরূপ উৎপাদন বৃদ্ধিকরণ, সেবা উন্নয়ন, শিক্ষা এবং স্বাস্থ্য পরিষেবার উন্নয়ন। এই পরিকল্পনা স্থায়ী এবং দ্রুত হতে হয়। সরকার মুখোমুখি সমস্যাগুলির সমাধান এবং সম্পদ সৃষ্টির জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া উচিত। উন্নয়নের মূল লক্ষ্য হল নির্ভরযোগ্য এবং সমগ্র উন্নয়ন।

একটি সুষ্ঠু এবং সমগ্র অর্থনৈতিক ব্যবস্থাকে সৃজনশীলভাবে উন্নয়ন করা উচিত। এর কারণে দেশের বেকারত্ব কমে ও লোকের আর্থিক অবস্থা উন্নয়ন পায়। একসাথে প্রকৃতি এবং সমাজকে সংরক্ষিত রাখতে হবে যাতে সমগ্র বিকাশ হয়। একটি সুষ্ঠু অর্থনৈতিক ব্যবস্থার সাথে দেশটি উন্নতির সম্ভাবনা সমান রকম এবং সমগ্র অর্থনৈতিক উন্নয়ন সম্ভব হবে।

বিভিন্ন প্রকারের অর্থনৈতিক ব্যবস্থার তথ্য

আর্থিক ব্যবস্থা একটি বিশাল বিষয়। এটি আমাদের সমাজের প্রতিদিনের জীবনের একটি অপরিহার্য অংশ। বাংলাদেশে এই ব্যবস্থা পরিচালিত হয় ব্যাংক, বীমা কোম্পানি, সরকার এবং বিভিন্ন প্রকারের কোম্পানির দ্বারা। প্রতিটি ব্যবসায়ে উন্নতিপূর্ণ বিনিয়োগ আছে যা বাজারে প্রবেশ করছে।

বিভিন্ন ধরনের ক্রেডিটকার্ড, লোন, বোনাস, বিভিন্ন করের নির্ণয় সরকারের পাশাপাশি বীমা কোম্পানি বিভিন্ন ধরনের প্লানের মাধ্যমে সরকার এবং মানুষকে সহায়তা করছে। এই সদস্যদের সম্পদ এবং সম্পদ সৃষ্টি করছে আর্থিক ব্যবস্থা। তাছাড়াও, এখন উন্নত এবং প্রযুক্তির যুগে, স্মার্টফোনের মাধ্যমে অনলাইনে অর্থনৈতিক ব্যবস্থা একটি বিপুল ক্ষেত্র হয়ে গেছে। ব্যাংকের মাধ্যমে একটি লোন অ্যাপ্লিকেশন বা ইন্টারনেট ব্যাংকিং, স্মার্টফোন এবং কম্পিউটার ব্যবহার সরকারি এবং বেসরকারি বিভিন্ন কোম্পানি প্রদান করে যা যথাযথ সেবা প্রদানের এবং জনসম্পদ বৃদ্ধি এবং বাণিজ্যিক সাফল্য বৃদ্ধির জন্য মূলত ব্যবহৃত হয়।

উদ্ভিদ আধারিত ব্যবস্থা

বিভিন্ন সাধারণ দৃষ্টিভঙ্গি অনুযায়ী শক্তি প্রসব এবং বিকাশের জন্য আদর্শকর ব্যবস্থা দরকার। এই প্রসঙ্গে, উদ্ভিদ আধারিত ব্যবস্থার ক্ষেত্রে একটি নতুন উদ্যম আছে যা প্রকৃত কৃষি এবং বাণিজ্য ব্যবস্থার মধ্যে একটি মধ্যস্থতা সৃষ্টি করে। উদ্ভিদ আধারিত ব্যবস্থা মূলত উন্নত রকমের বিক্ষোভ করে এবং এটি একটি খুব পার্থক্যপূর্ণ দিক হল এর পরিবেশগত সম্পাদন। এই ব্যবস্থার মাধ্যমে উদ্ভিদগুলি সরবরাহ করতে পারে এবং এর ফলে পরিবেশ সাফ থাকে।

তাছাড়া, এটি উন্নত প্রযুক্তির উপযোগ করে প্রসবকাল ও জনসাধারণের লাভজনক হতে পারে। এই ব্যবস্থাটি সাম্প্রতিক পরিবেশ পরিবর্তনের চেষ্টার একটি মাধ্যম হওয়া উচিত। তাছাড়া এটি খাদ্য সিকৃতির জন্য একটি খুব উপযোগী ব্যবস্থা হওয়া উচিত, যা গতির চাপে বাঙালি জাতিকে জয় করতে সাহায্য করতে পারে। শেষ করে, উদ্ভিদ আধারিত ব্যবস্থাটি একটি পরিবেশসম্পন্ন ও উন্নত প্রযুক্তিতে আধারিত ব্যবস্থা হওয়া উচিত।

বাজার প্রধান ব্যবস্থা

অর্থনৈতিক ব্যবস্থার ক্ষেত্রে বাংলাদেশে আছে একটি বিস্তৃত ব্যবহারযোগ্য বাজার প্রধান ব্যবস্থা। ব্যবসা করা হলে বিভিন্ন প্রকারের ট্যাক্স, ব্যাংক এবং তথ্য বিনিময় সেবা প্রয়োজন হয়। এই ব্যবস্থা তথ্য প্রয়োজন সুবিধার জন্য একটি বেশ কাছাকাছি নেটওয়ার্ক বিকাশ করেছে। বাংলাদেশ কেনেদের জন্য এই ব্যবস্থা সম্প্রসারণ করা হয়েছে, যারা পুরো দেশে ব্যবসা করে থাকেন।

আমাদের বিভিন্ন ব্যবস্থায় ব্যবহৃত মোবাইল ব্যাংকিং ও তথ্য প্রযোজন নেটওয়ার্ক ও ইন্টারনেট বিনিময় অন্য সুবিধা প্রদান করে। আমরা আগে থেকেই এই ট্যাকসগুলি নিয়ে বলেছি যে এটি একটি বৃদ্ধি প্রাপ্ত দেশের মাধ্যমে নিরসন করা হয়। তবে বাংলাদেশের এই ব্যবস্থা সবচেয়ে প্রভাবশালী হল বিভিন্ন ব্যবসায়ী এবং বিদেশী বিনিময়কারী কর্মীদের জন্য। এই দেশে এখন আর ব্যবসায় শুরু করার জন্য কোন হার্ডশিপ নেই।

সরকার প্রধান ব্যবস্থা

একটি দেশের প্রগতির জন্য উচ্চমানের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা সম্পন্ন হওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ। একটি দেশে যদি অর্থনৈতিক প্রগতি হয়, তবে সে দেশের অবদানগুলি প্রকাশিত থাকে। সরকার একটি দেশের প্রধান ব্যবস্থা সরবরাহ করে যা দেশকে আরও উন্নয়নশীল করে। বিভিন্ন প্রকারের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা সরকার প্রধান ব্যবস্থা সম্পন্ন করে।

একটি দেশের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা সরকার পালন করে। একটি দেশে উন্নয়নশীল হতে হলে সেখানে সরকার একটি মৌলিক ভূমিকা পালন করে। বিভিন্ন প্রকারের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা সরকার পরিচালিত হয়। রাজস্ব ও কর আদায়, টেক্সটাইল, ফুড প্রসেসিং, বিদেশ বাণিজ্য এবং টেলিযোগাযোগ এমনকি বাণিজ্যিক ম্যানেজমেন্ট সম্পন্ন করে তা সকলে সরকার নিয়ন্ত্রণ করে।

এছাড়াও সরকার অর্থনৈতিক ব্যবস্থায় নতুন বিনিয়োগ চালু করে এবং নতুন চাকরি সৃষ্টি করে। সরকারগুলি সৃষ্টিশীল হতে চেষ্টা করে যাতে অর্থনৈতিক ব্যবস্থা দেশের জনগণের হিতে সম্পন্ন হয়। সরকার প্রধান ব্যবস্থা সম্পন্ন করে দেশের অর্থনৈতিক প্রগামী করে যেতে পারে। সরকারি নীতি ও কার্যক্রম ব্যবহার করে দেশের উন্নয়ন এবং পুনর্নির্মাণ কাজ চলন্ত থাকতে হবে।

সরকার বিভিন্ন প্রকারের বিনিয়োগ এবং সেবা সরবরাহ করে যাতে একটি সমর্থ অর্থনৈতিক ব্যবস্থা সিদ্ধ হয়। সরকার যখন বৃহত প্রকল্প শুরু করে তখন দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের সম্ভাবনাগুলি একটু নতুন উজ্জ্বল হয়। সরকার প্রায়শই একটি দেশের প্রধান ব্যবস্থা চালাচ্ছে। একটি রাষ্ট্রের অর্থনৈতিক স্বাবলম্বী হতে হলে তার সকল প্রকারের ব্যবস্থা উন্নয়নশীল করতে হবে।

সমস্ত ষ্টেপস সরকার ব্যবস্থায় পালন করা হয়। সরকার আরও বেশি দক্ষ ও কার্যকরী নীতিমালা প্রয়োগ করে সমস্ত জাতির উন্নয়নকে নিশ্চিত করে। একটি দেশের অর্থনৈতিক সুস্থতা সরকারের প্রাথমিক লক্ষ্য হতে হবে। সরকারি ব্যবস্থা সমস্ত প্রজন্মের অর্থনৈতিক উন্নয়নে সক্ষম হবে।

অন্যান্য প্রকারের ব্যবস্থা

একটি সম্পূর্ণ অর্থনৈতিক ব্যবস্থার মাধ্যমে পুরো দেশে অর্থ যন্ত্রণা লাগে। এই যন্ত্রণার সুবিধার মধ্যে বিভিন্ন ধরণের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা রয়েছে। উদাহরণস্বরূপ, একটি দেশ প্রায় প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে আয় সংগ্রহ করতে পারে। কিন্তু উদ্যোগীদের জন্য বাংলাদেশে লেনদেন নিবন্ধন ও আয়কর কর্তৃপক্ষ এর ব্যবহার করা রেজিস্ট্রেশন প্রদান করে।

অধিকাংশ উদ্যোগী সকলকে এগুলি মেনে নিয়ে তাদের কে কর্মিদের হিসাব সমূহ জমা দেওয়া প্রয়োজন নেই। কিছু স্টেট ব্যাংক তাদের আয় সংগ্রহ করে এবং কাস্টমারদের বিনামূল্যে পরিবহন প্রদান করে। অন্য একটি বিকল্প হলো খাত সম্পদ নির্ভর হওয়া। এটি বেসরকারি লোকেদের জন্য একটি ভাল বিকল্প হতে পারে যারা ব্যবসা করে, বা কাজ করে।

তারা তাদের নিজস্ব সম্পদ ডিপোজিট এডভ্যান্স করে এবং প্রয়োজন অনুযায়ী তাদের সম্পদ পুনর্বিতরণ করতে পারে। এছাড়াও, বিভিন্ন চাকরির সুযোগ প্রদান করে নির্মিত টেকনোলজির সাথে বিনিয়োগে ফিন্যান্স এ নিজস্ব প্রথমগুলো প্রদান করে। যেমন, ওয়েব এবং সাইবার সুরক্ষা ব্যবস্থার জন্য নিজস্ব ফিন্যান্স উত্পাদন করতে পারে এবং নীতিমালা এবং সামাজিক সমস্যার সাথে সমস্যা সমাধানে জোর করে কাজ করতে পারে। শেষমেষ, কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছাত্রদের ছাত্রীদের কে ছাত্রলীগ স্কলারশিপ প্রদান করে তাদের শিক্ষার্থী বা হিসেবরক্ষণ করার জন্য উপযোগী হিসাবের আর সম্মানী প্রদান করে।

তাদের জন্য একটি আমন্ত্রিত সুযোগ তাদের যে কোন বিনিয়োগ এ উত্তর দেওয়ায় সহায়তা করে। সকল এই অর্থনৈতিক ব্যবস্থা ওয়েব সাইটে স্পষ্টতম উল্লেখ করা হয় তার ফলে যে কোন ব্যবহারকারীই তাদের পছন্দমতো নির্দিষ্ট অর্থনৈতিক ব্যবস্থার উপর নির্ভর করতে পারে।

Leave a Comment