পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা (Total Quality Management) বলতে কি বুঝায়?

পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা (Total Quality Management) একটি প্রবন্ধ পদ্ধতি যা প্রতিষ্ঠানের সমগ্র গুণগত পরিচালনার জন্য ব্যবহৃত হয়। এটি মান উন্নয়ন এবং সংরক্ষণে টুলস এবং তাকনিক সম্পর্কিত উপাদানগুলি ব্যবহার করে। পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনার উদ্দেশ্য হল কেন একটি কোম্পানি প্রদর্শনশীলতা পরিবর্তন, যা গ্রাহক সন্তুষ্টি উন্নয়ন ও আলোচনা করতে পারে এবং সমস্যা দূর করতে পারে। এই পদ্ধতিটি প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে সকল বিভাগের মধ্যে সমলিত হলে তাকে প্রতিবেদিত ও উন্নয়নশীল হতে অনুমতি দেয় যা পরিস্কার জ্ঞান এবং সুষ্ঠু প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়।

একটি ভাল পদ্ধতিতে অর্থনৈতিক উদ্দেশ্যগুলি পূরণ করা যেতে পারে এবং সাপেক্ষে একটি সুন্দর গ্রাহক বিনয় উন্নয়ন করতে পারে যা কোন ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি ব্যবহার করা না ললেই সম্ভব নয়।

পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা: কি ও কেন?

পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা হলো সেই প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে একটি প্রতিষ্ঠান তার উৎপাদন, বিপণন ও বিক্রয় পদ্ধতিতে সমগ্র ব্যবসার মান বাড়ানোর জন্য পুরস্কৃত হয়। এটি নিয়ে কাজ করতে হলে উপসর্গ আবশ্যক হয়। একটি ব্যবসায়িক উপসর্গ হল পন্য বা পরিষেবার মানে নির্দিষ্ট একটি মানকে বোঝার জন্য ব্যবসায়িক প্রণালী বা পদক্ষেপে যা নেওয়া হয়। কোন পদক্ষেপ নেওয়া হলে তার ফলে উপসর্গ প্রাপ্ত না হলে প্রতিষ্ঠানে কোন তারতম্য নেই।

তাই পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনার একটি উপায় হল নির্দিষ্ট স্থায়ী মানকে অনুসরণ করা, উন্নয়ন করা এবং একটি বাজার দর্শন সম্পন্ন ব্যবসায়িক পদক্ষেপের মাধ্যমে নতুন মানকে ব্যবহার করা।

পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনার পরিচিতি

পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা হল একটি ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি, যেখানে প্রতি পণ্য এবং পরিষেবার মান স্বরূপে ঠিকভাবে নিয়ন্ত্রণ রাখা হয়। সুতরাং, সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল পণ্য এবং পরিষেবার যোগ্যতা বা মানসম্পন্ন হওয়া। আর কাজের দিক থেকে এটি একটি প্রক্রিয়া যা পুরো ব্যবস্থাপনা পদ্ধতিতে ব্যবহার করা হয়। এই পদ্ধতিতে উপলব্ধি ও সেবা সরবরাহের ক্ষেত্রে প্রতিটি পণ্য এবং সেবার গুণমানকে কাজের সময় পরীক্ষা করে নেওয়া হয়।

এটি সত্যিই কেনাকাটা কারখানা থেকে পুরস্কার সম্পন্ন করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এই মান ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে কোন পণ্য বা সেবা এর মান ও মূল্য উন্নয়ন করা যায়, যদি সঠিকভাবে ব্যবহার করা হয়। আজকের চাহিদা উচ্চতার কারণে, এই প্রক্রিয়ার ভিত্তিতে উন্নয়ন এবং উন্নতি আরও গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

বিভিন্ন কোম্পানি প্রযোজ্য করে পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা

পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা একটি কোম্পানির জন্য মূলত গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা যা প্রতিষ্ঠানের সফলতার জন্য খুবই জরুরী। আইটি সামগ্রিক পরিচালনা ও গুনগত উন্নয়নে সাহায্য করে এবং একটি পরিচালনার মাধ্যমে একটি বাস্তব উদাহরণ সৃষ্টি করে। পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা আসলে কোম্পানিতে মানব সম্পদের সাথে সম্পর্কের মাধ্যমে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বেছে নেওয়া উচিত এমন শিক্ষামূলক সুযোগ যা একজন কর্মীর পেশায় উন্নয়নে সহায়ক হবে তাকে উন্নয়ন করবে এবং প্রতিষ্ঠানটি সফল করবে।

আপনার প্রতিষ্ঠান মূলত কী উপাদানে ভিত্তিহীন এবং বিশ্বস্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালিত হচ্ছে বা না তা নির্ধারণ আপনার মজার পথ। বিভিন্ন কোম্পানির চিন্তা ছাড়াও আপনি নিজের কোম্পানিতে পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা ব্যবহার করতে পারেন।

কেন পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা প্রয়োজন?

পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা হলো একটি ব্যবসায়িক স্ট্রাটেজি যা উন্নত মান সৃষ্টি করতে লাগে। ব্যবসায়ী একটি পণ্য অথবা সেবা উপস্থাপন করে তার কাস্টমারদের কে নিজের বিপণন করে তুলতে এক্ষুনি তার পণ্যের মান উন্নত রাখতে চেয়ে পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা ব্যবহার করে। এটি ব্যবসায়ের জন্য একটি উপকারিতা যা সার্থকভাবে ব্যবহার করলে সফলতা পেতে সহায়তা করে। ব্যবসায়ীর পণ্য বা সেবা যদি উন্নত মান সৃষ্টি করে তবে তার সংখ্যালঘু ক্রেতারবিশ্বাস বাড়ে এবং ব্যবসা বাড়তে চাই তাড়াতাড়ি করে।

তাছাড়া, পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা করে ব্যবসায়ীর লেনদেন বাড়ে এবং নিজের স্থান বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে। সুতরাং, পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং এটি প্রয়োজন।

পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা কেন অর্থবহ?

পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা বলতে কী বোঝায়? এটি সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া যা একটি কোম্পানি বা ব্যবসার লক্ষ্য করে নির্ধারিত মান অর্জন করার জন্য ব্যবহার করে। এটি উপসর্গকৃত একটি সিস্টেম যা কোম্পানি প্রদান করে, একটি পারদর্শী, নির্ভরযোগ্য এবং ফিউচার-ফোকাসড পদক্ষেপ সমন্বয়ে ধারাবাহিক পরিচালনা করতে সাহায্য করে। একটি পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা সিস্টেম অবশ্যই একটি বড় বাণিজ্যিক ব্যাপারে জন্য প্রয়োজনীয়, যা পুণঃলাভ করে এবং সম্পৃক্ত নানা স্তরের ব্যবসার কার্যক্রম একত্রে একটি সন্নিবেশ প্রদর্শন করে। সঠিকভাবে ব্যবহৃত এটি কোম্পানিকে কাজ করছে কিনা সহজে ট্র্যাক করা যায় এবং অন্যান্য স্তরের কর্মচারীদের সাথে যোগাযোগ এবং তথ্য শেয়ার করার ক্ষমতাও তৈরি করে।

সকলের মধ্যে একটি সামনে ডিজিটাল যুগে পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা করা দরকারী একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং আভ্যন্তরীন ক্ষেত্র।

একটি উদাহরণ দিয়ে বিশ্লেষণ

মান ব্যবস্থাপনা হলো প্রতিষ্ঠানে প্রোডাক্ট নির্মাণ, সেবা সরবরাহ ও সংশ্লিষ্ট কাজগুলি করার সময় উত্তম মান বজায় রেখে তাদের উন্নয়নের সমস্ত পদক্ষেপ। প্রতিষ্ঠানের গাড়ির টায়ার থেকে শীতলকেন্দ্র তৈরি করতে যেমন সবকিছু উত্পাদিত হয় তেমন মান ব্যবস্থাপনার পরিপুর্ন অবস্থানটি প্রতিষ্ঠানের জন্য সহজ হতে হবে। এটি প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রমকে মানদণ্ডে নিয়ন্ত্রিত এবং সম্পূর্ণ একটি প্রস্তুতিকৃত পদক্ষেপ মানে ধরে নিশ্চিত করে। মান ব্যবস্থাপনা সঠিক হলে কোন কার্য সত্যিই সফলভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব হয়।

একটি উদাহরণ দিয়ে বিশ্লেষণ করে দেখা যাক। যখন আমাদের আঁকারি পেশা শীতলকেন্দ্রের গ্রাহক সেবার জন্য কল ট্রেইনিং দিচ্ছিলাম, তখন আমরা গ্রাহকদের জন্য কতটুকু ঠান্ডা পানি উপসর্গ করছি সে দেখে নিয়েছিলাম। কিন্তু আমরা তখন সেখানে কম মাত্রায় পানি উপস্তু করতে পারছিলাম। কী হয়েছিল? আমরা মাত্রায় এবং জনসাধারণের প্রত্যাশাকে মেটানোর চেষ্টা করি নি।

তবে আমরা মাত্রায় যথেষ্ট পানি উপস্তু করে জনসাধারণকে সন্তুষ্ট করতাম কেননা আমরা চেষ্টা করে ছিলাম যথেষ্ট মানের পানি উপস্তু করে। এভাবে জানি আমরা মান ভিত্তিভাবে কতটা গুরুত্ব দিতে পারি।

পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনার উপ-পরিচিতি

পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনার উপ-পরিচিতি হলো একটি ব্যবসায়িক পদ্ধতি যা কোন প্রতিষ্ঠানের প্রযুক্তি, মানবসম্পদ এবং সংস্থার গুরুত্বপূর্ণ সম্পাদক উন্নয়ন করে। এই পদ্ধতি নির্দিষ্ট উদ্দেশ্যের সাথে ব্যবস্থাপনার আদর্শগুলি অর্থাত পরিষ্কারভাবে নির্ধারিত স্ট্রেটেজি এবং কার্যপ্রণালীর উপর ভিত্তি করে পরিচালিত হয়। এটি প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন এবং লাভার্জনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ কৌশল হিসাবে বিবেচনায় আসে। একটি ভাল পরিচালক পরিবেশগুলির প্রত্যক্ষ সামনে অফ স্কুয়ার জন্য সমস্যাগুলির সমাধান চিন্তা করে এবং পদক্ষেপ নেওয়া হয়।

সমস্যাগুলির দ্রুত সমাধান এবং একটি প্রতিষ্ঠানকে পরিচালনার নির্দিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ দক্ষতা প্রদান করা যাতে সে প্রত্যেকদিন আরও উন্নয়ন করতে পারে।

সিস্টেমটি কিভাবে কাজ করে?

সিস্টেম ব্যবস্থাপনা একটি পদক্ষেপমূলক প্রক্রিয়া যা প্রতিষ্ঠানের চালনার উন্নয়নের সুবিধা দেয়। এই ব্যবস্থাপনা সম্পন্ন হয় কিছু প্রধান উপাদানের মাধ্যমে: পরিকল্পনা, বিনিয়োগ, অভিযান এবং নজরদারি। পরিকল্পনার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠান এটি নির্ধারিত করে যে কোনও উদ্দেশ্যের জন্য কি করবে। বিনিয়োগ নির্ধারিত করে যে কোনও কাজের জন্য ঋণ বা শূন্যতার মান নির্ধারণ করে।

অভিযান, আর্থিক এবং নন-আর্থিক উদ্দেশ্য সাধারণত হয় সমস্ত তথ্য একত্রিত করা এবং যাচাই করা। জবটি প্রতিষ্ঠান সঠিকভাবে চালনাচালন করে সেটি নজরদারির মাধ্যমে সম্পাদিত হয় তাকে একটি সম্পূর্ণ ব্যবস্থাপনার সিস্টেম বলা হয়। সেটি সঠিকভাবে কাজ করার জন্য একেকটি উপাদানকে স্বতন্ত্রভাবে ব্যবহার করে কাজ করা হয়। দক্ষ ব্যবহারকারীগণ সুবিধাজনকভাবে এটি ব্যবহার করে প্রতিষ্ঠানের চালনাচালন সম্পাদন করেন।

পরিচিত ধাপসমূহ

পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা একটি কার্যকর পদক্ষেপ যা কোনও ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন ও প্রগতি নিশ্চিত করে। এটি আপনাকে ধাপ দেওয়া এমন একটি পদক্ষেপ যা সমস্যার মুখোমুখি স্থানকার না হলেও আপনার প্রতিষ্ঠানকে এমন একটি অবস্থায় নিয়ে যায় যেটি কাজের সময়, উর্জা এবং অর্থনীতির সম্পূর্ণ সমন্বয় তৈরি করে ব্যবসার স্থায়ী ও উন্নয়ন করতে সাহায্য করে। প্রথম ধাপ হল অবশ্যই পরিকল্পনা করা যে আপনি কি লক্ষ্য করছেন এবং কেনভাবে আপনার স্বপ্নটি একটি সত্যিকার হয়ে উঠতে পারে। নবায়ন এবং পরিকল্পনা জন্য মান চলাকালের সাথে পরিবর্তিত হয় এবং কোনও দীর্ঘদিন পর্যন্ত একেবারেই ঠিকঠাক নয় থাকে।

তাই নির্দিষ্ট লক্ষ্য ও আলোচনা করা প্রয়োজনীয়। একবার স্বপ্ন ও লক্ষ্য নির্ধারণ করা হলে, এটি নিশ্চিত করার সময় যথেষ্ট এবং স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থাপনা বেশি ফলস্বরূপ হয়। একটি পরিচিত উদাহরণ, একটি কম্পানি নির্মাণ করতে চাইলে, নির্দিষ্ট কোম্পানীর আঞ্চলিক বা জাতীয় বাজার পর্যালোচনা এবং পরিসংখ্যান জরুরি হয়। এটি নিশ্চিত করবে যে আপনার প্রতিযোগীর সঙ্গে আপনার কম্পানির প্রতিস্পর্ধা করা সম্ভব হবে না।

একবার পরিকল্পনা এবং দায়িত্ব নির্ধারণ করা হলে, অবশ্যই নিশ্চিত করুন যে কোনও উন্নয়ন এবং প্রগতি সঠিকভাবে মূল্যায়নকরণ এবং ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে হয়। সর্বশেষ, কোর প্রস্তুততার সঙ্গে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সম্ভব হতে স্বচ্ছতার লক্ষ্য রাখুন। স্বপ্নের সত্যিকার হওয়ার কোনও সীমা নেই, তবে পর্যবেক্ষণ করুন যে আপনি কোথায় চলে যাচ্ছেন এবং যে আপনি পরে যাচ্ছেন সেই পথে আফসোস করতে না হয়।

প্রক্রিয়া বিশ্লেষণ

নির্দিষ্ট কাজ বা উদ্দেশ্য সহজেই লক্ষ্য করতে যাওয়া নেই বা কখনও পরবর্তীতে লক্ষ্য করা না হওয়া হলে আমরা প্রয়োজনীয় সময় ও অর্থ নষ্ট করতে পারি। কিন্তু যদি আমরা প্রাথমিক স্তরেই স্পষ্ট করে নেই যে আমরা কোনো কাজের ক্ষেত্রে পরিকল্পনা করছি কীভাবে সেটি অর্থবহ এবং কখন হলে সেটি সফলভাবে সম্পন্ন করতে পারি। এটি হলো পূর্ণাঙ্গ মানব্যবস্থাপনার মূল উপাত্ত। এটি একটি অপরিহার্য ভিন্ন অংশ যা একটি সফল ব্যবস্থাপনা এবং বাণিজ্য সংস্থা পরিচালনার জন্য অত্যন্ত গুরত্বপূর্ণ।

একটি কোম্পানি বা সংস্থার উদ্দেশ্য এবং লক্ষ্য কি আর কোনো ব্যবস্থাপনা প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে সেটি নির্দিষ্ট হওয়া প্রয়োজন। এর মাধ্যমে ব্যবস্থাপনা করা হয় যাতে ফলাফল পরিমাপ করা সম্ভব হয়। আধুনিক সময়ে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হলো ফলাফল পরিমাপ করা যাতে প্রতিষ্ঠানের উন্নতি ও উন্নয়ন এবং পরিচালনার বিভিন্ন অংশে উন্নতি হতে সক্ষম হয়। একটি সফল ব্যবস্থাপনা সম্পন্ন করার জন্য পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা একটি প্রাথমিক এবং অপরিহার্য অংশ।

এটি যেন কর না করে দেড় পাঁচে সমস্যার সমাধান না করার মত একটি অপরিহার্য অংশ। পরিকল্পনার জন্য নির্দিষ্ট লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য প্রয়োজন এবং এদের উপর নির্ভর করে পরিকল্পনা তৈরি করতে হবে। এছাড়াও সময় বাঞ্ছনীয় পরিচালনা এবং একটি প্রতিষ্ঠানের প্রভাবও হয়ে থাকে। একজন ভালো পরিচালক যখন তাঁর পরিচালনার ভিত্তি হিসাবে পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা নিয়ে চিন্তা করে এবং তা প্রক্রিয়াশীল করে নেয় তখন সে তাঁর প্রতিষ্ঠানকে উন্নয়নে এগিয়ে নেওয়ার পথে আগে হাত ধরে চলে থাকে।

বাংলাদেশে পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনার সম্ভাব্য অনুপ্রেরণা

বাংলাদেশ একটি উন্নয়নশীল দেশ। এখানে চাহিদা ও সরবরাহ এবং ব্যবহারের ঝামেলাও তুলে ধরতে হয়। একটি প্রতিষ্ঠানের পরিচালক হওয়া যেতে হলে সে কাঁচনজঙ্গল থেকে বাংলাদেশের এই ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে জানা জরুরি। বৈশ্বিক বাজার প্রস্তুতি পাওয়ার জন্য স্থানীয়ভাবে বাজার উন্নয়ন করা জরুরি হল।

আমাদের চাইতেও বৃহদাকার বাজার থাকতে হবে যা সারা দেশকে অনুপ্রেরণা এবং চালান দেবে। এই প্রস্তুতি দায়িত্ব গ্রহণ করার জন্য স্থানীয় প্রতিষ্ঠানের সমর্থন প্রয়োজন। তাদের চাইতেও প্রতিটি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের একটি কর্মীর উত্সাহ প্রতিষ্ঠানের পরিবেশটি উন্নয়ন করতে পারে। সামাজিক প্রমানে আমাদের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলি শীর্ষ স্থান অধিকারীদের সুযোগ উপহার করে।

এতে মাইক্রো ও মেডিয়াম হ্যান্ডেলিংসমূহ উন্নয়ন পায়। পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা বাংলাদেশে উন্নয়নের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। ব্যবস্থাপনা ব্যবস্থার সংক্রান্ত সমস্যাগুলি দূর করতে সমস্ত প্রতিষ্ঠানে একটি প্রাথমিক পরিকল্পনা থাকা জরুরি। একটি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের পরিচালককে প্রয়োজন সম্পদ এবং ভালো শিক্ষার উপকার হতে পারে।

ব্যবস্থাপনা একটি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানকে সফলভাবে পরিচালিত করতে সাহায্য করে এবং ব্যবস্থাপনার পরিবেশ উন্নয়ন সেরা ফল হচ্ছে। সব শেষে, বাংলাদেশে পূর্ণাঙ্গ মান ব্যবস্থাপনা সফল সার্থক ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলি চালানোর জন্য গুরুত্বপূর্ণ। প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদান করা, ব্যবস্থাপনার পরিবেশ সুষ্ঠ করা, এবং ব্যবস্থাপনার পরিবেশ উন্নয়ন সঠিকভাবে সম্পন্ন করা প্রতিষ্ঠানের কর্তব্য। এই প্রস্তুতি যদি শুরু হয় তবে বাংলাদেশে শুভ ভবিষ্য নিশ্চিত।

Leave a Comment